মেশিন ল্যাংগুয়েজ কি? কিভাবে কাজ করে? এর সুবিধা এবং অসুবিধা


আসসালামুআলাইকুম

হ্যালো গাইজ, কেমন আছেন সবাই? আশা করি আপনারা সকলে আল্লাহ তায়ালার অশেষ রহমতে ভালো আছেন। আর ভালো না থাকলে তো ভালো লাগার ওয়েবসাইট TrickBD আছেই। যেখান থেকে আমরা নিত্য নতুন টিপস এবং ট্রিকস পেয়ে যাই। তো যাই হোক আজকে যে বিষয় নিয়ে পোষ্ট করতে যাচ্ছি তা আপনারা ইতিমধ্যে উপরিউক্ত টাইটেল দেখেই জেনে গেছেন। তো চলুন চলে যাই আজকের টপিকে।

বন্ধুরা, আপনারা জানেন কম্পিউটির দুটি অংশ নিয়ে গঠিত। হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যার। কম্পিউটারের বাহ্যিক অংশ যা আমরা সচক্ষে প্রত্যক্ষ করতে পারি সেটা হচ্ছে হার্ডওয়্যার। আর কম্পিউটারের জীবণীশক্তি হলো সফটওয়্যার। আর এই সফটওয়্যার যারা তৈরি করে তাদেরকে বলা হয় সফটওয়্যার ডেভলপার বা সফটওয়্যার ইন্জিনিয়ার। সফটওয়্যার তৈরি করা হয় প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ দিয়ে। যা বিভিন্ন ধরনের কার্য সম্পাদনা করতে পারে।

বিভিন্ন ধরনের প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ আমরা দেখতে পাই। যেমন:- জাভা, সুইফট, সি, সি++, জাভাস্ক্রিপ্ট, রাবি, পাইথন ইত্যাদি। এগুলো হলো কম্পিউটারের ভাষা। আমরা যদি কম্পিউটারে কোন প্রোগ্রাম লিখতে যাই তাহলে আমাদেরকে কম্পিউটারের ভাষায় লিখতে হবে। কম্পিউটার শুধুমাত্র বাইনারী ডিজিট 0 এবং 1 ছাড়া কিছুই বুঝে না। এখন স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন জাগবে যে তাহলে এই প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজগুলো কাজ করে কিভাবে?
আচ্ছা আপনার মনে কি প্রশ্ন জাগে না যে এই প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজগুলো কিভাবে তৈরি হলো বা পৃথীবির সর্বপ্রথম প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ কি ছিলো? কিভাবেই বা কম্পিউটারের সূচনালগ্নে সফটওয়্যার ডেভলপ করা হতো?
এই প্রশ্নগুলো যদি আপনার মাথায় ঘুরপাক খায় তাহলে আপনাকে জানতে হবে মেশিন ল্যাংগুয়েজ সম্পর্কে। তাহলে আপনি এই প্রশ্নগুলোর সমাধান পেয়ে যাবেন। আজকের এই পোষ্টে আমি মেশিন ল্যাংগুয়েজ নিয়েই আলোচনা করবো।

মেশিন ল্যাংগুয়েজ কি

মেশিন ল্যাংগুয়েজ হলো এক ধরনের প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়জ যা কম্পিউটার কোন ধরনের কম্পাইলার বা ইন্টারপ্রেটার ব্যাতীত সরাসরি কম্পিউটার বুঝতে পারে। অর্থাৎ এই ল্যাংগুয়েজ রান করার জন্য বিশেষ ধরনের আলিদা কোন সফটওয়্যারের প্রোয়োজন নেই। এটি কম্পিউটার সরাসরি বুঝতে পারে। সহজ ভাষায় বলতে গেলে মেশিন ল্যাংগুয়েজ হলো 0 আর 1 এর একটি বিশাল সমষ্টি যা শুধুমাত্র নির্দিষ্ট কম্পিউটার বুঝতে পারে। এটি পৃথীবির সর্বপ্রথম প্রোগ্রামিং ভাষা। কম্পিউটারের সূচনালগ্নে এটি দিয়েই সফটওয়্যার ডেভলপ করা হতো।

মেশিন ল্যাংগুয়েজ কিভাবে কাজ করে

আমরা যদি সফটওয়্যার ডেভলপ করতে চাই তাহলে আমাদের প্রোগ্রামিং ভাষার প্রোয়োজন হয়। কম্পিউটার নিজে থেকে কোন কাজ করতে পারে না। কম্পিউটার দিয়ে কাজ করাতে হলে তাকে তার ভাষায় কাজ শিখাতে হবে। তাকে আমরা যেভাবে কাজ শিখাবো বা দিকনির্দেশনা দিব সে সেভাবেই কাজ করবে। আর কম্পিউটারকে দিকনির্দেশনা দেওয়া হয় মেশিন ল্যাংগুয়েজ দিয়ে। আপনারা সচারাচর যে সমস্ত প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজগুলো দেখে থাকেন সেগুলো কিন্তু কম্পিউটার বুঝে না। আপনারা কম্পাইলার বা ইন্টারপ্রেটারের নাম শুনেছেন বা যারা প্রোগ্রামার তারা ব্যবহারো করেছেন। এই প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজগুলো কম্পাইলার বা ইন্টারপ্রেটার দিয়ে কনভার্ট হয়ে মেশিন কোডে পরিণত হয়। আর এই মেশিন কোড অনুযায়ী কম্পিউটার কাজ করে।

মেশিন কোডের সুবিধা

মেশিন ল্যাংগুয়েজের অনেক সুবিধা এবং অসুবিধা রয়েছে । নিচে সেগুলো দেওয়া হলো।

  1. মেশিন ল্যাংগুয়েজ রান করার জন্য আপনার পৃথক কোন সফটওয়্যার বা কম্পাইলারের প্রোয়োজন নেই। এটি সরাসরি কম্পিউটারে রান করা যায়।
  2. এটি কম্পিউটারের মৌলিক ভাষা। যা সরাসরি কম্পিউটারে রান করা যায়। তাই এটি অনেক দ্রুত সম্পন্ন।
  3. এটি রান করার জন্য যেহেতু পৃথক কোন ইন্টারপ্রেটারের প্রয়োজন হয় না। তাই এটি রান করার জন্য অতিরিক্ত মেমোরি খরচ হয় না।
  4. এটি সি পি ইউ বা সেট্রাল প্রসেসিং ইউনিট সরাসরি বুঝতে পারে

মেশিন কোডের অসুবিধা

  1. মেশিন কোড শিখা এবং ব্যবহার করা অনেক কষ্পসাধ্য।
  2. মেশিন কোড প্লাটফোর্ম ডিপেনডেন্ট। অর্থাৎ এক প্লাটফোর্মের কম্পিউটারের কোড অন্য প্লাটফোর্মে রান করা যাবে না।
  3. কেবল 0 এবং 1 ব্যবহার করে প্রোগ্রাম লিখা হয় বলে এর বাগ ফিক্স করা প্রায় অনেকটা অসম্ভব।
  4. কোডে কিছু সংযোজন বিয়োজন করা অনেক কষ্টসাধ্য



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *