মিউজিক রিলিজ করার মাধ্যমে গুগল নলেজ ব্যালেন্স তৈরি [ Google knowledge Panel Part 2]


আসসালামু আলাইকুম ওরাহমাতুল্লাহ। আশা করছি সকলে অনেক ভাল আছেন। তো স্বাগতম জানাচ্ছি আজকের গুগল নলেজ এর দ্বিতীয় পর্বে। আজকে আমি দেখাবো কিভাবে মিউজিক রিলিজ করার মাধ্যমে গুগল নলেজ প্যানেল পাওয়া যায়।
তো চলুন শুরু করা যাক।

মিউজিক রিলিজ কি:
মিউজিক রিলিজ করা টা আমরা যেমন ইউটিউব এ আপলোড দেই সেরকম ব্যাপার না। একটা বই পাবলিশ করতে হলে যেমন একটি পাবলিশার এর কাছে যেতে হয়। ঠিক তেমনি গান বা মিউজিক রিলিজ করার জন্য একটি ডিস্ট্রিবিউশন এর কাছে যেতে হয়।

মিউজিক ডিস্ট্রিবিউশন কি:
মিউজিক ডিস্ট্রিবিউশন হচ্ছে কোন গানের লাইসেন্স সহকারে মিউজিক রিলিজ করা। অর্থাৎ এর মাধ্যমে গান রিলিজ করলে এটি আপনার নিজের সম্পত্তি হিসেবে থাকবে। ডিস্ট্রিবিউশন এর কাজ হল গানটিকে সকল মিউজিক স্টল গুলোতে সেল করার জন্য পাঠিয়ে দেওয়া। যেমন ধরুন অ্যাপেল মিউজিক, স্পটিফাই, অ্যামাজন মিউজিক, ডিজার ইত্যাদি। এর মাধ্যমে আপনি রয়ালিটি ইনকাম করতে পারবেন।  এসব প্লাটফর্মে যদি আপনি একটি গান রিলিজ করেন তাহলেই আপনার গুগল নলেজ প্যানেল তৈরি হয়ে যাবে। কিন্তু শুধু এতে গান রিলিজ করলে আপনার নলেজ প্যানেল্টি অতটাও সমৃদ্ধ হবে না। তাই আমার পরামর্শ হলো যে কমপক্ষে পাঁচ টি গান আপনারা রিলিজ করবেন। যদি বেশি করতে পারেন সেটাও অনেক ভালো।

গান রিলিজ করার ক্ষেত্রে সতর্কবার্তা:
এখানে একটি বিষয় আপনাকে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে তাহলে গানটি সম্পূর্ণ আপনার নিজের তৈরি অথবা এমন গান বা মিউজিক যা আগে কখনো কোথাও রিলিজ হয়নি । অর্থাৎ সম্পূর্ণ আপনার নিজের একটি গান অথবা মিউজিক লাগবে।

ডিস্ট্রিবিউশন এর প্রকার:
দুই রকমের ডিস্ট্রিবিউশন আছে।
১। প্রিমিয়াম ডিস্ট্রিবিউশন।
২। ফ্রি ডিস্ট্রিবিউশন

প্রিমিয়াম ডিস্ট্রিবিউশন:
প্রিমিয়াম ডিস্ট্রিবিউশনে বিশেষ কিছু সুবিধা থাকে। যেমন আপনার মিউজিকটি কতবার শোনা হয়েছে কতবার স্ট্রিম করা হয়েছে তা সব সময় সঠিক তথ্য দেখা এবং এর মাধ্যমে আয় হওয়ার সকল রয়ালিটিজ আপনি পাবেন এবং এর মাধ্যমে গান আপনার ইচ্ছেমতো সময় রিলিজ করতে পারবেন। রিলিজ করার সময় প্রসেসগুলো হয় তা খুব তাড়াতাড়ি হয় প্রেমিয়াম ডিস্ট্রিবিউশনের মাধ্যমে।
বর্তমানে সেরা কিছু প্রেমিয়াম ডিস্ট্রিবিউশন:
1. https://distrokid.com/
2. https://www.tunecore.com
3. https://cdbaby.com/
4 .https://www.awal.com/
5. https://www.landr.com/

ফ্রি মিউজিক ডিস্ট্রিবিউশন:
প্রিমিয়ার মিউজিক ডিস্ট্রিবিউশন এর পাশাপাশি কিছু ফ্রি মিউজিক ডিস্ট্রিবিউশনও আছে। ফ্রি মিউজিক ডিস্ট্রিবিউশনে আপনি যদি গান রিলিজ করতে চান তবে এতে কিছু লিমিটেশন আছে। এর মাধ্যমে আপনি সম্পূর্ণ পাবেন না কিছু পারসেন্ট সেই কোম্পানি রেখে দিবে। এবং আপনি চাইলেই যেকোনো সময় আপনার গান রিলিজ করতে পারবেন না। আপনি গান রিভিউ এ পাঠানোর পর যখন তারা একসেপ্ট করবে তখনই গান রিলিজ হবে। এখন রিভিউ এর কাজ এক সপ্তাহ লাগতে পারে অথবা এর বেশিও লাগতে পারে। এছাড়াও আমার দেখা মতে ফ্রি মিউজিক ডিস্ট্রিবিউশন গুলোতে আপনি আপনার গান কতবার শুনা হয়েছে  তা সম্পর্কে সঠিক তথ্য পাবেন না। এবংস্ট্রিবিউশন গুলো অনেক লেইজি টাইপের হয়ে থাকে।
কিছু ফ্রি মিউজিক ডিস্ট্রিবিউশন:
1. https://www.routenote.com/
2. https://www.novecore.com/
3. https://dittomusic.com/en
4. https://indiefy.net/
সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য ধন্যবাদ। কোন সমস্যা হলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন ইনশাআল্লাহ উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব।

তো আজকে এই পর্যন্তই। সকলে ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন । আল্লাহ হাফেজ।

The post মিউজিক রিলিজ করার মাধ্যমে গুগল নলেজ ব্যালেন্স তৈরি [ Google knowledge Panel Part 2] appeared first on Trickbd.com.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *