গুগল ও ফেসবুক আপনার সম্পর্কে যা যা তথ্য জানে তা সমস্ত কিছু এক ক্লিকে Download করে নিন! (Miss করলেই আপনারই Loss)


আসসালামু আলাইকুম,

কি অবস্থা সবার?

ইন্টারনেটের দুনিয়ায় আমরা প্রতিদিনই কোনো না কোনো কিছু সার্চ করে থাকি। আর সবচেয়ে বেশি আমরা গুগল দিয়েই সার্চ করে থাকি। গুগল এখন শুধু একটা সার্চ ইঞ্জিন বলেই বিবেচিত নয়। গুগল এখন মোবাইল থেকে শুরু করে সবকিছুই নিজেরাই তৈরি করছে। গুগলের এত নামের পিছনে একটা বড় কারন হচ্ছে গুগলের প্রতি জনগনের বিশ্বাস।
Google play services, google play store, google play games, google play music, youtube, google translate, google meet, snapseed,  google earth, google classroom,  google sheets,  files by google, google drive, google keyboard, google chrome, google docs, google calculator, google maps সহ প্রত্যেকটি ক্ষেত্রে গুগলের অবদান আছে। আমি তো মাত্র কয়েকটি সার্ভিসের কথা বললাম।  এর চেয়েও শত শত সার্ভিস গুগল জনগনকে প্রদান করছে।

কিন্তু আপনি কি ভেবে দেখেছেন, গুগলের প্রতি এই নির্ভরশীলতার ফলে গুগল কি আপনার উপর নজরদারিতে ব্যস্ত কি না? হয়তো না। আবার ভাবলেও খুব একটা গুরুত্ব দেননি হয়তো। আপনি এমনটা মনে করতেই পারেন, আরে ভাই আমি তো আমেরিকার প্রেসিডেন্ট না, যে আমার উপর গুগল নজরদারী করলে ভালো কিছু পাবে। আমি একজন সাধারন মানুষ৷ আমার উপর গুগল নজরদারী করলেও গুগলের কি লাভ?
দাড়ান। সেই প্রসংগেই আসছি।

আপনি কখনো এটা ভেবে দেখেছেন কি? আপনি যখন কাউকে কোনো প্রোডাক্ট বা সার্ভিসের কথা নিয়ে কারো সাথে ফোনে কথা বলেন বা মেসেজ দেন বা গুগলে সার্চ দেন একটু পরেই আপনি যখন অনলাইনে ফেসবুক ইউটিউবের মতো প্ল্যাটফর্মে ঢোকার সাথে সাথে আপনাকে ঐ বিষয় সম্পর্কেই এডস শো করাতে থাকে? কিংবা ধরুন আপনি কারো সাথে সামনাসামনিই বসে কথা বলছেন যে আপনি একটা শার্ট কিনবেন। এবং একটু পরেই আপনাকে শার্ট সম্পর্কে পৃথিবীতে যত এডস আছে তা শো করাতে থাকে!

আপনি যে গুগলের প্রতি এতটা নির্ভর সেটা আপনি যে দিক দিয়েই হোন না কেন, গুগলের কাছে আপনি শুধুই একটা প্রোডাক্ট ছাড়া আর কিছুই না!

কি? এখনো বিশ্বাস হচ্ছে না?

আচ্ছা ঠিক আছে। আমি প্রমান সহকারে আপনাকে দেখিয়ে দিব গুগল কিভাবে আপনার মোবাইল বা অন্য কোনো ইলেকট্রনিক ডিভাইসের মধ্যে দিয়ে আপনাকে তাদের একটা প্রোডাক্টে রূপান্তরিত করে ফেলেছে আর আপনি কিভাবে তাদের নজরদারীতে আছেন ২৪ ঘন্টা। ঠিক যেন একটা রোবটের মত। আপনাকে যা দেওয়া হচ্ছে আপনি তা-ই গ্রহন করছেন। আপনি এমন এক জালে আটকে গেছেন যেখান থেকে বেরিয়ে আসা অনেকটা অসম্ভব হয়ে পড়েছে।

এই পোস্টে আমি আপনাদের দেখাবো গুগল আপনার কি কি সার্ভিস কালেক্ট করছে তাদের ডেটা সেন্টারে আর আপনি কিভাবে সেগুলো ডাউনলোড করতে পারবেন আর চেক করতে পারবেন।

চলুন, শুরু করা যাক।

১) প্রথমে ভালো একটা ব্রাউজার থেকে www.google.com এ যান।

২) এরপর “Manage your google account” এ ক্লিক করুন।

৩) এরপর “Data and Privacy” তে ক্লিক করুন। নিচে স্ক্রল করে এসে “Download Your Data” তে ক্লিক করুন।

৪) এরপর যেসব ডেটা আপনি ডাউনলোড করতে চান সেসব ডেটা মার্ক করে সিলেক্ট করুন।

৫) Next এ ক্লিক করে ফাইল সাইজ ও কি ফরমেটে এক্সপোর্ট করতে চান সেটা সিলেক্ট করুন।

৬) “Create export” button এ ক্লিক করুন।

এরপর গুগল নিজের সার্ভারে আপনার ফাইলগুলো তৈরী করা শুরু করবে। এটা কয়েক ঘন্টা থেকে কয়েক দিন পর্যন্ত সময় নিতে পারে। তৈরি হয়ে গেলে আপনাকে মেইল করবে গুগল। সেখানে আপনি একটা ডাউনলোড লিংক পাবেন। এরপর সে ডাউনলোড লিংকে ক্লিক করে আপনি ফাইলটা ডাউনলোড করে নিবেন।

মোবাইলে হলে zarchiever/rar App এর মাধ্যমে ফাইলটি এক্সট্রাক্ট করবেন। এরপর ভিতরে আপনার কাংখিত সকল ফাইলগুলো পেয়ে যাবেন।

এখন অবশ্যই বিশ্বাস হচ্ছে আমি কি নিয়ে কথা বলছিলাম?! আসলে টেকনোলজির এই দুনিয়ায় বিশ্বাস শব্দটি অনেক বড় অর্থ বহন করে। অনলাইনের দুনিয়ায় আপনি কাউকে বিশ্বাস করতে গেলে অনেক বুঝে সুঝে তারপর বিশ্বাস করতে যাবেন। কারন এখানে আপনার ডেটাই হচ্ছে সবচেয়ে বড় হাতিয়ার। আপনার ডেটা আপনার জন্যে কিছু না হলেও বড় বড় এসব কোম্পানির কাছে কোটি টাকার সম্পদের চেয়েও দামী।

১) প্রথমেই ফেসবুকের Official App কিংবা Facebook Lite কিংবা অফিশিয়াল ও্যেবসাইটে চলে যান www.facebook.com

২) এরপর Settings এ ক্লিক করুন।

৩) এরপর ‘see more in accounts center” এ ক্লিক করুন।

৩) ‘Your information and permissions” এ ক্লিক করুন।

৪) এরপর download your information এ ক্লিক করুন।

৫) এবার download or transfer information এ ক্লিক করুন।

৬) এবার আপনার প্রোফাইল সিলেক্ট করুন।

৭) এবার আপনি choose করুন আপনি কিছু specific type এর information download করতে চান নাকি যত available আছে সব info download করতে চান। সেটা সিলেক্ট করুন।

৮) এরপর সিলেক্ট করুন আপনি এই ডিভাইসেই ডাউনলোড করতে চান নাকি অন্য কোথাও ট্রান্সফার করতে চান।

৯) এবার সিলেক্ট করুন কোন থেকে কত সময়ের ইনফরমেশন আপনি ডাউনলোড করতে চান। যেমন ধরুন আপনার আইডি খোলা হয়েছে ২০২০ সালে এখন ২০২৪ সাল। আপনি এই পুরো সময়ের ইনফো ডাউনলোড করতে চাইলে all time select করুন আর তা না চাইলে specific year of time সিলেক্ট করে নিন।

১০) যেমন এভাবেঃ

১১) media quality high ই সিলেক্ট করবেন। তারা বলবে সময় লাগবে বেশি যা সত্য তবে বাজে কোয়ালিয়াটি না চাইলে আর ওয়াইফাই থাকলে আপনি high quality ই সিলেক্ট করবেন।

১২) এরপর সব সিলেক্ট করা হয়ে গেলে create files এ ক্লিক করুন।

১৩) এরপর আপনি ইমেইল দিয়ে দিবেন যেখানে ও আপনার আইডিতে notification পাঠাবে সব ফাইল zip আকারে ডাউনলোডের জন্যে available হয়ে গেলে। সাধারনত ১-২ দিন সময় লাগে তবে আপনার আইডির ইনফরমেশনের উপর depend করবে কতটা সময় লাগবে। যদি অনেক পুরোনো আইডি আর অনেক গ্রুপ মেসেজ ইত্যাদি থাকে তাহলে সময় একটু বেশি লাগবে। আর তেমন কিছু না থাকলে অনেক তাড়াতাড়ি হয়ে যাবে।


কিছু কথাঃ ফেসবুক এবং গুগল দুটোর কাছেই আপনি প্রোডাক্ট। আপনার সব তথ্য তাদের কাছে আছে। আপনি ডাউনলোড করলেই বুঝবেন আর ভয় এবং অবাক দুটোই পাবেন। অনেকেই জানে না এগুলো যা আমি মনে করি সবারই জানা উচিত তাই এই পোস্টটি লিখা। যদি একজন মানুষেরও কাজে দেয় তবে আমি ভেবে নিবো আমার কষ্ট করে লিখা সার্থক হয়েছে। তাই কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

আজকের মতো এখানেই বিদায় নিচ্ছি।
ইনশাল্লাহ দেখা হবে পরের কোনো পোস্টে।
ততক্ষনের জন্যে ট্রিকবিডির সাথেই থাকুন।
ধন্যবাদ।
THIS IS 4HS4N
SIGNING OUT…



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *