কম্পিউটার অটোমেটিক বন্ধ হয়ে যায়, বা ২০ মিনিট পর পর বন্ধ হয়ে যায়? নিজের কম্পিউটার নিজেই ঠিক করুন!


আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন সবাই? আসা করি ভালোই আছেন কারন ট্রিকবিডির সকলে মোটামোটি ভালোর দলেই!

তো আমরা যারা কম্পিউটার ব্যাবহার করি বিশেষ করে যারা পিসি ব্যাবহার করি আমাদের সকলেরই একটি সমস্যার মধ্যে প্রায়ই পরতে হয় যে কম্পিউটার চালু করার পর সেটা অটোমেটিক রিষ্টার্ট নিতে শুরু করে, অথবা ৩০ মিনিট চলার পর অটোমেটিক বন্ধ হয়ে যায়। তো এটা মূলত কিছু কমন সমস্যার কারনে হয়ে থাকে, চলুন দেখে নেই সমস্যা গুলো কি কি এবং তার সমাধান কি!

সর্ব প্রথম যেই সমস্যাটির কারনে এমনটা হয় তা হলো পাওয়ার ক্যাবলের কারনেঃ


পিসি কিছুক্ষন পর পর বন্ধ হয়ে যাওয়ার প্রথম এবং গুরুত্বপূর্ন সমস্যাই হচ্ছে পাওয়ার ক্যাবল ঢিলে হবার কারনে হয়ে থাকে। আপনার পিসির যেই পাওয়ার সাপ্লাই আছে সেখানে যেই পাওয়ার ক্যাবলটি ব্যাবহার করেন সেটি দেখেন ঢিলে অবস্থায় আছে কিনা। পাওয়ার সাপ্লাই এর মধ্যে একটি কুলিং ফ্যান রয়েছে, পাওয়ার ক্যাবলটি যখন ঢিলে হয়ে থাকে পাওয়ার সাপ্লাই এর মধ্যে থাকা কুলিং ফ্যানটি কিছুটা কম্পন সৃষ্টি করে ফলে পাওয়ার ক্যাবলটি নরে যায় যার কারনে পিসি চলা অবস্থায় হঠাত করেই বন্ধ হয়ে যায় বা রিষ্টার্ট নেয়। পাওয়ার ক্যাবল লাগানোর স্থানটি ভালো করে ঘসে পরিষ্কার করুন অথবা যদি পাওয়ার ক্যাবল এর জন্য এই সমস্যাটি হয়ে থাকে তাহলে অবস্যই পাওয়ার ক্যাবলটি পরিবর্তন করতে হবে।

পাওয়ার সাপ্লাই এর লুস কালেকশনের কারনেও সমস্যাটি হতে পারেঃ
পাওয়ার সাপ্লাই এর লুস কালেকশনের জন্যও পিসির এই সমস্যাটি হতে পারে। পাওয়ার সাপ্লাই এর মেইন ক্যাবলটি মাদারবোর্ডের সাথে ভালোভাবে লাগানো হয়েছে কিনা দেখুন অথবা পাওয়ার সাপ্লাই এর ৪ পিন বা ৬ পিন এর ক্যাবলটি ভালোভাবে লেগেছে কিনা খেয়াল করতে হবে। এছাড়াও পাওয়ার সাপ্লাই এর কুলিং ফ্যান এর সমস্যা থাকলেও এরকম ঝামেলায় পরতে হয়। মাঝে মাঝে দেখা যায় পিসির মধ্যে থাকা সকল কুলিং ফ্যান ঘুরে কিন্তু পাওয়ার সাপ্লাই এর মধ্যে থাকা কুলিং ফ্যানটি ঘুরে না সেক্ষেত্রে পাওয়ার সাপ্লাইটি পরিবর্তন করতে হবে।

র‍্যাম এর কারনে পিসি বার বার রিষ্টার্ট নিতে পারেঃ


পিসি বার বার বন্ধ হয়ে যাবার পেছনে দ্বিতীয় কারন এবং কমন একটি সমস্যা হতে পারে র‍্যাম ঠিক মতো না লাগানোর ফলে অথবা র‍্যাম এর মধ্যে জমে থাকা ময়লার কারনে। র‍্যামের মধ্যে কাটা কাটা যেই পাত গুলো রয়েছে সেগুলোর মধ্যে মরিচা ধরেছে কিনা সেটা লক্ষ করে দেখুন। যদি র‍্যামের মধ্যে থাকা পাতের উপর ময়লা বা মরিচা থাকে তাহলে সেগুলো র‍্যাম স্লটের মধ্যে ঠিক মতো কানেকশন দিতে পারে না ফলে বার বার পিসি বন্ধ হয়ে যায়। যদি এমনটা হয় তাহলে র‍্যামের পাত গুলো একটি পরিষ্কার রাবারের মাধ্যমে ভালো করে ঘষে পরিষ্কার করুন ভূলেও পাতের উপর হাত লাগাবেন না রাবার দিয়ে আলতো ভাবে ঘষে তারপর পরিষ্কার একটি কাপর দিয়ে পরিষ্কার করে ফেলুন।

প্রোসেসর এর কারনেও এই সমস্যাটি হতে পারেঃ
প্রোসেসর হচ্ছে কম্পিউটারের একটি মেরুদন্ড। কম্পিউটার প্রোগ্রামে একটি অটো সিস্টেম করা আছে যে প্রোসেসরটা বেশি গরম হয়ে গেলেও পিসিটি অটোমেটিক বন্ধ হয়ে যাবে। লক্ষ করতে হবে প্রোসেসরের মধ্যে থাকা পাত গুলোর মধ্যে ময়লা আছে কিনা। প্রোসেসর এর মধ্যে ময়লা থাকার ফলেও পিসি ঠিক মতো কাজ করতে পারে না ফলে একটু পর পর পিসি রিষ্টার্ট নেয় বা বন্ধ হয়ে যায়। প্রোসেসরের মধ্যে যদি কোন ময়লা থেকে থাকে তাহলে র‍্যামের মতো করে পরিষ্কার রাবার দিয়ে আলতো করে ঘসে পরিষ্কার করতে হবে।

আর প্রোসেসরে অবশ্যই থার্মাল পেষ্ট ব্যাবহার করতে হবে। প্রোসেসরের উপরে যেই কুলিং ফ্যান লাগানো থাকে তার নিচে যেই অ্যালুমেনিয়াম আছে সেটি প্রোসেসরের সাথে আটকে থাকে। কুলিং ফ্যানটি সে অ্যালুমেনিয়ামটি ঠান্ডা করে অ্যালুমেনিয়াম থেকে আবার প্রোসেসর ঠান্ডা হয়। কিন্তু প্রোসেসরের মধ্যে যদি থার্মাল পেষ্ট ব্যাবহার করা না হয় তাহলে প্রোসেসরটি ঠান্ডা হতে পারে না আর অতিরিক্ত গরম হবার কারনে পিসি বন্ধ হয়ে যায়। প্রোসেসরের মধ্যে থাকা থার্মাল পেষ্ট ৫-৬ মাস পর পর অবশ্যই একবার পরিবর্তন করে নতুন থার্মাল পেষ্ট লাগাতে হবে।

তাছাড়াও প্রোসেসর এর উপর থাকা কুলিং ফ্যান ঠিক মতো না ঘুরার কারনেও পিসি বন্ধ হয়ে যাওয়ার সমস্যাটি হয়। কুলিং ফ্যানটি যদি ঠিক মতো না ঘুরতে পারে তাহলে অবশ্যই কুলিং ফ্যানটি পরিবর্তন করে নতুন কুলিং ফ্যান লাগাতে হবে।

সাটা ক্যাবল এর জন্যও সমস্যাটি হতে পারেঃ


কম্পিউটার বার বার বন্ধ হয়ে যাওয়া এবং পিসি অন করার পর মনিটর ডিসপ্লে নিল হয়ে থাকার আরেকটি কারন হতে পারে হার্ডডিস্ক এর লাইন এর সমস্যার কারনে। হার্ডডিস্কে থাকা সাটা ক্যাবলটি খুলে ভালো ভাবে পরিষ্কার করে তারপর সেটি লাগান এতে করে সমস্যার সমাধান হতে পারে।

আসা করি এই সকল দিক গুলো অনুশরন করলে খুব সহজেই সমস্যার সমাধান পেয়ে যাবেন। আর অবশ্যই ১ মাস বা ২ মাস পর পর পিসিটি পরিষ্কার করবেন। সব চাইতে ভালো হয় ব্লোওয়ার মেশিন দিয়ে পিসিটি পরিষ্কার করবেন এতে করে পিসিও ভালো থাকবে পিসি পরিষ্কারও থাকবে আর কোন সমস্যার সম্যুখীন হতে হবে না।

আজকের পোষ্টটি এই পর্যন্তই পরবর্তীতে আরো ভালো ভালো টিটোরিয়াল পেতে ট্রিকবিডির সাথেই থাকুন! ধন্যবাদ।



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *